জীবনে সাফল্যের ১০টি সেরা মূলমন্ত্র

পৃথিবীর শীর্ষ ধনীদের জীবন কাহিনী পড়ে একটি ব্যাপার লক্ষ্যনীয় যে এদের কেউ জন্মসূত্রে কোটি কোটি টাকার মালিক হন নি, হয়েছেন সম্পূর্ন নিজেদের প্রচেষ্টায়। অনেকের এই সাফল্যের রহস্য কী, তা জানতে গিয়ে বেশ কিছু মিল খুঁজে পেলাম প্রায় সবার কথাতেই। সেগুলোকেই আমি সার সংক্ষেপে আপনাদের সামনে তুলে ধরছি ,

১.স্বপ্ন গড়ুন এবং তা অনুসরণ করুনঃ

স্বপ্ন দেখুন , স্বপ্ন গড়ুন ভালোভাবে বেঁচে থাকার। আপনি তখনই একটি সুন্দর জীবন যাপন করতে  পারবেন, যদি আপনি আপনার এই স্বপ্ন কে অনুসরণ করে সঠিক পথটি খুঁজে বের করতে পারেন। শুধু তাই-ই নয়, এই স্বপ্ন কে পূরণ করার জন্য যে কোন ধরণের ঝুঁকি নেয়ার মতো সাহসও আপনার থাকতে হবে, মনোবল থাকতে হবে কঠোর পরিশ্রম করার।

জীবনের মূল্যবান সময়টিকে নষ্ট করবেন না প্রেমের সস্তা আবেগে ভেসে গিয়ে।

২. অন্যদের থেকে নিজেকে আলাদা করে ভাবুনঃ

যদি আর ১০ জন সাধারণ মানুষের মতই নিজের জীবনটাকে ভাবেন, তাহলে আপনার জীবন কখনো অদের থেকে আলাদা হবে না। তাই সব সময় নিজেকে অন্যরকম সচরাচর থেকে আলাদা করে ভাবতে শিখুন।

এটি শুধু মাত্র আপনার নিজের জন্যেই না, যাদের কে নিয়ে আপনি পথ চলছেন, অর্থাৎ আপানার ব্যবাসা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সবার জন্যেই সব সময় আরো উন্নত ও ভালো কিছু ভাবতে হবে, এবং সেই অনুযায়ী কাজও করতে হবে।

৩. আস্থা ও বিশ্বাসঃ

নিজের উপর জোর আস্থা রাখুন। আরো আস্থা রাখুন যে আপানার সাফল্য বা ব্যর্থতা নির্ভর করছে আপানর নিজের উপরেই, তাই সেভাবেই নিজের চিন্তা ও কাজের পরিকল্পনা করুন। মনে রাখবেন, আপানর নিজের উপরে যদি নিজেরই আস্থা বা বিশ্বাস না থাকে, তাহলে অন্যরা কেন আপনার উপর আস্থা রাখবে?

দৃড়তার সাথে নিজের গড়া পথে এগিয়ে চলুন, বিশ্বাস রাখুন যে সফল আপনি হবেনই।

 

 ৪। কাজের ফাঁকেই আনন্দ করুন প্রাণ খুলেঃ

জীবনে সফলতার চাবি কাঠি হল কঠোর পরিশ্রম। তবে এই কথা ভুলে গেলে চলবে না যে এক নাগারে কেবল পরিশ্রম করলেই আপনি সফল হবেন। কাজের ফাঁকে ফাঁকে যখনি সময় পাবেন, আনন্দ করতে ভুলবেন না। এটি আপনাকে ভোরের মিষ্টি বাতাসের মতই সজীবতা দেবে।

যদি আপনি কোন প্রতিষ্ঠনের কর্ণধার ও হয়ে থাকেন, তাহলেও এটি মেনে চলবেন। অধীনস্থদের কে মাঝে মাঝেই আনন্দ বিনোদনের সুযোগ করে দেবেন। এতে সবার মধ্যে কর্ম স্পৃহা আরো বেড়ে যাবে। যার ফলে আপানর ব্যবসার লাভও হবে দ্বিগুণ।

৫. হাল ছেড়ে দেবেন নাঃ

ব্যক্তিগত জীবনেই হোক কিংবা ব্যবসায়িক, কোন ক্ষেত্রেই হাল ছেড়ে দেবেন না। হাসি মুখে যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করুন।

৬. প্রতিদিনের কাজের তালিকা তৈরী করুনঃ

রোজ সকালেই ঠিক করে ফেলুন দিনের কাজ কী কী হবে, তা নোট করে নিন ডায়েরীতে। সেই অনুযায়ী নিজেকে প্রস্তুত করুন, সময় ভাগ করুন, যাতে নোট করা কোন কাজই বাদ না পরে যায়।

৭. পরিবারকে সময় দিনঃ

কাজের ব্যস্ততা যতই থাকুক না কেন, নিজ পরিবারের প্রতিও আপানার কিছুটা দায়িত্ব থেকে যায়, তাই সেই দায়িত্ব পালন করতে যেন কার্পন্য করবেন না। পরিবারের সদস্যদের সাথে মেতে উঠুন হাসি খেলায়। দেখবেন অফুরান প্রাণশক্তি পাচ্ছেন আপনি। আপনজন দের হাসি মুখ আপনাকে দেবে অন্যরকম এক অনুভূতি, যা মানসিক শক্তির ধারক বাহক।

৮. নিজেকে মুক্ত করুন খোলা পৃথিবীতেঃ

সারাক্ষণ টিভি বা কম্পিউটার নিয়ে ব্যস্ত না থেকে বাইরের খোলা পৃথিবীতে নিজেকে টেনে নিয়ে আসুন। দেখবেন সেখানে টিভি বা ইন্টারনেট এর জগতের বাইরে মুগ্ধ হবার মতো নানা রকম জিনিস রয়েছে। রয়েছে রোমাঞ্চকর অনেক ঘটনা, যা কেবল উন্মুক্ত প্রতিবিতেই পাওয়া সম্ভব। সেগুলো আপনার সময় নষ্ট করবে না, বরঞ্চ আপনাকে সমৃদ্ধ করবে, উদার, উন্মুক্ত করবে আপনার মন মানসিকতা কে।

৯. লোকের সমালোচনা এড়িয়ে চলুনঃ

অনেকেই হয়তোবা আপনার কাজ বা আপনার চিন্তা ভাবনার সাথে দ্বিমত প্রকাশ করবে, বা আপনার সমালোচনা করবে, আপনাকে সামনে এগিয়ে যেতে দেবে না, নানা রকম প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে, সেগুলো এড়িয়ে যাবেন। ‘পাছে লোকে কিছু বলে’ এই চিন্তা না করে নিজের লক্ষ্য ও গন্তব্যের দিয়ে এগিয়ে যাবেন দৃড়তার সাথে।

১০. যা আপনার ভালো লাগে, তাই-ই করুনঃ

আপনি আগেই তো আপানর স্বপ্ন ঠিক করে রেখেছেন, সুতরাং সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য যা করা উচিত বা যেটাকে আপানার পারফেক্ট মনে হবে, তাই-ই করবেন। আপনি সফল হওয়া মানে আপনার সাথে সাথে আরো অনেক লোকজনের উপকার হওয়া। সুতরাং নিজের এবং অন্যের মঙ্গল চিন্তায় যা করা সঠিক মনে হবে, সেটাই করবেন আপনি।

ধন্যবাদ সবাইকে, সবার সফল জীবন কামনা করছি।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s