সব বুদ্ধিমান মানুষের মাঝেই যে মিল পাওয়া যায়

সূর্য ডুবে যাওয়ার বহুক্ষণ পরে, রাত যখন গভীর হয় তখন সাধারণ মানুষ ঘুমিয়ে পড়ে। কিন্তু বুদ্ধিমান মানুষ চাঁদের সঙ্গী হয়ে তখনও জেগে থাকে। এক গবেষণায় দেখা গেছে এ বিষয়টি বুদ্ধিমানদের মাঝে একটি অতি সাধারণ বিষয়। সাইকোলজি টুডের উদ্ধৃতি দিয়ে এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে এলিট ডেইলি।
১. তারা দেরি করে ঘুমায়
গবেষণায় দেখা গেছে, বুদ্ধিমান মানুষ সাধারণ বা নিম্ন আইকিউযুক্ত মানুষের চেয়ে অনেক বেশি নিশাচর হয়। আর আইকিউ স্কোর যাদের বেশি তারা সপ্তাহের কাজের দিনে কিংবা সপ্তাহান্তের ছুটির দিনে দেরি করে ঘুমাতে যায়।
লন্ডন স্কুল অফ ইকনমিক্স-এর মনোবিদ সাতোসি কানাজাওয়া জানিয়েছেন আইকিউয়ের সঙ্গে মানুষের ঘুমের অভ্যাসের বিষয়টির খুবই মিল পাওয়া যায়। বিশেষ করে যারা রাতে জেগে থাকে তারা বেশি বুদ্ধিমান হয়।
জরিপ করে ঘুমের বিষয়টির সঙ্গে আইকিউয়ের সম্পর্ক তুলে ধরেছেন এ গবেষক। এতে উঠে এসেছে মার্কিনিদের ঘুমের ধরনের সঙ্গে আইকিউয়ের সম্পর্ক। জরিপে উঠে এসেছে-
আইকিউ কম (<৭৫)
সপ্তাহের কাজের দিনে – রাত ১১:৪১ – সকাল ৭:২০
সপ্তাহান্তে – রাত ১২:৩৫ – সকাল ১০:০৯
স্বাভাবিক (৯০<১১০)
সপ্তাহের কাজের দিনে – রাত ১২:১০ – সকাল ৭:৩২
সপ্তাহান্তে – রাত ১:১৩ – সকাল ১০:১৪
বুদ্ধিমান (>১২৫)
সপ্তাহের কাজের দিনে- রাত ১২:২৯ – সকাল ৭:৫২
সপ্তাহান্তে – রাত ১:৪৪ – সকাল ১১:০৭
এতে দেখা যায়, আইকিউ যাদের বেশি তারা অন্যদের তুলনায় অনেক দেরিতে ঘুমায়।
২. তারা দিবাস্বপ্ন দেখার সময় পায়
অনেক বুদ্ধিমান মানুষ আরেকটি বিষয়ে গুরুত্ব দেয়। এটি হলো কাজের অবসরে নিজের জন্য একটু সময় বের করে নেওয়া। অনেকেই সাঁতার কাটা, সৃজনশীল কোনো কাজ করা বা শারীরিক অনুশীলন করেন। এছাড়াও কাজের ফাঁকে তাদের অনেককে সামান্য ঝিমিয়ে নিতে দেখা যায়।
সব বুদ্ধিমান মানুষের মাঝেই যে মিল পাওয়া যায়


৩. তারা প্রাতিষ্ঠানিকতা বিরোধী

রাতে জেগে থাকা কিংবা সামাজিক কাজকর্ম বিমুখতা অনেক বুদ্ধিমান মানুষকে প্রাতিষ্ঠানিকতা বিরোধী করে তোলে। একটি গবেষণায়ও এ বিষয়টির প্রমাণ পাওয়া গেছে। বিশেষ করে কর্তৃপক্ষকে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি দাঁড় করাতে এ ধরনের মানুষের জুড়ি নেই।
৪. তারা অন্যদের তুলনায় খোলামনের
বুদ্ধিমান রাত্রিজাগরণকারী মানুষের দিনের কার্যসূচি যেমন অন্যদের সঙ্গে মেলে না, তেমন তাদের মানসিকতাও অন্যদের তুলনায় ভিন্ন হয়। বিশেষ করে দেখা যায়, মানসিকতার ক্ষেত্রে তারা অন্যদের তুলনায় খোলামনের হয়ে থাকে।
৫. তারা নিয়ন্ত্রণ করতে জানে
ঘুম থেকে যারা তাড়াতাড়ি উঠে তারা হয়তো কিছুটা নিয়ন্ত্রণের সুবিধা পায়। কিন্তু যারা দেরি করে ওঠে তাদের বিষয়টি সম্পূর্ণ ভিন্ন। বিশেষ করে বুদ্ধিমত্তা বেশি হওয়ার কারণে তারা জানে কিভাবে সম্পূর্ণ বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করতে হয়।- See more at: http://www.kalerkantho.com/online/lifestyle/2014/08/03/113135#sthash.PiSims9D.dpuf

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s