ফেসবুকে লিংক শেয়ার করতে পারা মানেই মার্কেটিং না

নিজে দেখা ফেসবুকে মার্কেটিং বিষয়ে অনেকের ভুলগুলো ধরিয়ে দেওয়ার জন্য এ পোস্টটি।

 

১)  অন্যের পোস্টের ভিতর কমেন্টে নিজের বিজ্ঞাপন লিংক দেওয়া: প্রায় সময়ই বিভি্ন্ন পোস্টের ভিতরে এসে কমেন্ট করে নিজের লিংক মার্কেটিং করে আসতেছে। অনেক সময় দেখতেছি, আমি কোন নিজের পার্সোনাল কোন পোস্ট করেছি, সেখানে এসে কোন ১টা ট্রেনিং সেন্টার তাদের এসইও কোর্সের মার্কেটিং লিংক কমেন্ট করে আসতেছে। এটাতে কি আসলেই মার্কেটিং হচ্ছে? মার্কেটিং করা হয়, শুধু মানুষের চোখে পড়ার জন্য না। মানুষ যাতে আপনার পোস্টটা দেখে খুশি হয়, সেটিও দেখা দরকার। আর তখনই বিক্রি বৃদ্ধি সম্ভব। যখন কারও পোস্টে গিয়ে কমেন্ট করেন, সেটাতে আপনি নিজে হলে খুশি হবেন, নাকি গালি মারবেন, সেটি নিজেই ভেবে দেখুন। অন্যরা বিষয়গুলো না জেনে থাকতে পারে। কিন্তু এসইও কোর্স করাবে, তারাই এরকম গালি মারলে তাদের কাছে আর জীবনে কেউ এসইও কোর্স না করার সিদ্ধান্ত নেয়াটা স্বাভাবিক। কাছের কেউ যদি জিজ্ঞেস করে তাদের ব্যাপারে, তাহলে সে তার সামনেও প্রতিষ্ঠানটি সম্পর্কে বিরক্ত প্রকাশ করে গালিও দিবে।

 

২) ফেক অ্যাকাউন্ট দিয়ে মার্কেটিং: মার্কেটিং করার সময় ফেক অ্যাকাউন্ট দিয়ে মার্কেটিং করেন অনেকেই। ফেক অ্যাকাউন্ট ৮০% ক্ষেত্রে চেনা সম্ভব হয়। যদি কোন কোম্পানীর মার্কেটিং হয় ফেক অ্যাকউন্ট দিয়ে। এবং সেই চুরি যদি মানুষ ধরার সুযোগ থাকে, তাহলে শুরু থেকেই সেই কোম্পানীকে চোর হিসেবে মানুষের ধারণা প্রতিষ্ঠিত হবে। চোরদের কাছ থেকে কেউ টাকা দিয়ে সার্ভিস নেওয়ার কথানা। আপনি নিজে হলে চোরের কাছ থেকে কিছু কিনতেন কিনা, সেটা ভেবে দেখবেন। ফেসবুকের প্রোফাইল ছবি না থাকলে কিংবা অদ্ভুত নাম হলে খুব কম মানুষই আপনাকে বন্ধু হিসেবে গ্রহণ করবে। সেইটুকু জ্ঞান নিজের মধ্যে আসার পরই কোন কিছু্র মার্কেটিং শুরু করা দরকার।

 

৩) একই সার্ভিস প্রদান করা অন্য প্রতিষ্ঠানের গ্রুপে নিজের সার্ভিস প্রচার: অনেক আইটি ট্রেনিং প্রতিষ্ঠান ক্রিয়েটিভ আইটির অফিসিয়াল ফেসবুক গ্রুপে এসে তাদের এসইও কোর্সের প্রচার চালায়। সেই পোস্ট আবার ডিলিট করলে সেটি নিয়ে তার অনেক আপত্তি। ভাই, এসইও করার জন্য একটু কমন সেন্স কাজে লাগানো খুব জরুরী। ধরেন, আপনার ট্রেনিং প্রতিষ্ঠানে এসইও কোর্সের ক্লাশ নেওয়ার জন্য গেস্ট হিসেবে নিয়ে গেলেন। আমি ক্লাশ নেওয়ার সময় সারাক্ষন বললাম, ক্রিয়েটিভ আইটিতে এসে কোর্স করুন। তাহলে আপনি কি পরবর্তীতে আমাকে আর আমন্ত্রন জানাবেন? এটুকু কমন সেন্স থাকা দরকার মার্কেটারদের। ক্রিয়েটিভ আইটিতে এসইও কোর্স রয়েছে আর তাদেরই অফিসিয়াল গ্রুপে গিয়ে আপনার এসইও কোর্সের বিজ্ঞাপন দিয়ে আসবেন, সেটি কি মেনে নেওয়ার মত, বোকা লোক ক্রিয়েটিভ আইটিতে বসে আছে?

 

৪) ফেসবুকে লিংক শেয়ার করা মানেই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং না: অনেকের ধারণা শুধুমাত্র ফেসবুকে লিংক শেয়ার করা মানেই হচ্ছে এসএমএম বা সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং হচ্ছে। এজন্য সেটুকু জ্ঞান নিয়েই কাজ শুরু করে দেয়। এব্যাপারে সবার পরিস্কার ধারণা থাকা দরকার। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং যদি শিখা শুরু করেন, শেষ করতে পারবেননা। যে বিষয়ে মার্কেটিং করবেন সেই বিষয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে আগে নিজেকে influencer হিসেবে তৈরি করতে হয়। তারপর মার্কেটিং করতে হয় অবশ্যই টেকনিক নিয়ে, সেই মার্কেটিংকে আবার মনিটরিং করার পদ্ধতিও জানা থাকতে হয়। কোয়ালিটি কনটেন্ট লিখার জ্ঞান থাকতে হয়, তাহলেই অন্যকে আকৃষ্ট করতে পারবেন। টার্গেট ক্লায়েন্ট আগে খুজে বের করতে হয়, সেই ক্লায়েন্টদের চিন্তাভাবনা, চাহিদাগুলো নিয়ে আগে গবেষণা করতে হয়। তারপর মার্কেটিং পরিকল্পনা সেট করতে হয়। বিষয়টি এত সহজ বিষয়না। বিষয়গুলো আগে শিখতে হয়, অনেকদিন নিজে চর্চা করতে হয়, তারপরই মাঠে নামতে হয়। তাহলেই শুধুমাত্র সফল হওয়া যায় সহজে।

 

আরও কিছু অসংগতিও চোখে পড়ে। কিন্তু এ মুহুর্তে মনে পড়ছেনা। লেখাটা অবশ্যই শিক্ষনীয় হিসেবে নিবেন। কাউকে আঘাত করার জন্য লিখিনি।

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

w

Connecting to %s